Home হোম করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত কলাতিয়ার মর্ডান হসপিটাল...

করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত কলাতিয়ার মর্ডান হসপিটাল ও কলাতিয়া সেন্টাল হাসপাতালের চিকিৎকরা

188
0

করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত কলাতিয়া মর্ডান হসপিটাল ও কলাতিয়া সেন্টাল হাসপাতালের চিকিৎকরা

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ভয়ে দেশজুড়ে যখন সরকারি বেসরকারি হাসপাতালের অনেক চিকিৎসক নানা অজুহাতে চেম্বার রেখে স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টিনে চলে গেছেন।
ঠিক সেই মুহূর্তে কেরানীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়ন কলাতিয়ার মর্ডান হসপিটাল ও কলাতিয়া সেন্টাল হাসপাতালের চিকিৎকরা নিয়মিত চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

বিশেষ করে কলাতিয়া জন্ম গ্রহন করা কয়েকজন সুনামধন্য চিকিৎসকরা বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করছে এবং তাদের চিকিৎসা সেবা দিয়ে আগলে রেখেছেন কলাতিয়ার সাধারন জনগনকে ।
এ ব্যাপারে কলাতিয়া সেন্টাল হাসপাতালের সুনামধন্য চিকিৎসক ডা: আলীনূর পলাশ বলেন, মৃত্যুর বিরুদ্ধে মানুষের শেষ যুদ্ধের একমাত্র সৈনিক ডাক্তার। সেই যুদ্ধে পরাস্ত ব্যক্তির শেষ নিঃশ্বাসের তীব্র কষ্টের সময় কেউ পাশে থাকবে না। থাকবে শুধু ঐ ডাক্তার। যাদের কারণে-অকারণে আপনারা কসাই ডাকেন, অভিশাপ দেন। ‘অথচ শুধু এবার নয়, চিকিৎসাধীন সব মৃত্যুর ক্ষেত্রেই এ কথাটি সত্য যে, শেষ যে মুখটি আকুল হয়ে আপনাকে বাঁচানোর চেষ্টা করবে তা কোনো একজন ডাক্তারই।’

অথচ এই ডাক্তারাই কিন্তু এই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। থেমে থাকেননি এখানেই। টেলিমেডিসিন সেবা দিচ্ছেন ফ্রিতেই। তাদের ফোন করলেই মিলছে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরামর্শ।
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সরকার নির্দেশনা জারি করেছে। সাধারণ ছুটি ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ভয়াবহ পরিস্থিতি উন্নয়নে তেমনি কেরানীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশের পাশাপাশি মাঠে কাজ করছেন সেনাবাহিনীর সদস্যরাও।
এমন সংকটময় মুহূর্তে অনেক বিশেষজ্ঞ ডাক্তার যারা কেরানীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়মিত চিকিৎসাসেবা দিতেন, তাদের অধিকাংশরাই চেম্বার বন্ধ করে দিলেও ব্যতিক্রমী শুধু কেরানীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়ন কলাতিয়ার মর্ডান হসপিটাল ও কলাতিয়া সেন্টাল হাসপাতালের চিকিৎকরা ।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাওয়ায় কেরানীগঞ্জ তথা কলাতিয়ার আর্তপীড়িত জনগোষ্ঠীসহ এলাকার সচেতন মহল সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।
কলাতিয়ার মর্ডান হসপিটালের এমডি ডা. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘মানবসেবা সবচাইতে বড় ধর্ম। তার এই পেশায় আসার প্রধান কারণই হলো মানবসেবায় নিজেকে উৎসর্গ করা।’ তাই মানুষ যাতে চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য তিনি সংকটময় সময়েও দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। এছাড়া তিনি তার সাধ্যমত এলাকার গরিব ও অসহায় আর্তপীড়িতদের  চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন।
আমাদের অহংকার কলাতিয়ার জন্মগ্রহন করা চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত কৃতি সন্তানেরা বাংলাদেশ তথা কেরানীগঞ্জ বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যে যুদ্ধ করে যাচ্ছেন ।তাদের এই অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা বাংলাদেশের মানুষ আজীবন মনে রাখবেন ।

প্রচার ও প্রকাশক : আপন জানালা ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here